1. admin@bangladeshshomachar.com : admin :
  2. mahadiislam.datasource@gmail.com : Mahadi Islam : Mahadi Islam
বুধবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২১, ০৭:২০ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
মাঝারি ও ছোটরা এখনো দুর্দিনে পহেলা ডিসেম্বরকে মুক্তিযোদ্ধা দিবস ঘোষণার বিকল্প নেইঃচসিক মেয়র সীতাকুন্ডের চাঞ্চল্যকর কোরবান আলী হত্যা মামলার আসামী সুমন রামগড়ে আটক নারায়ণগঞ্জে ডিবি পরিচয়ে অপহরণকারী চক্রের ৫ সদস্য আটক;১ অপহৃত উদ্ধার গাজীপুরে ডিবি পরিচয়ে ডাকাতির চেষ্টা; ডাকাত চক্রের ৪ সদস্য আটক বর্জ্য থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদন, নতুন অধ্যায়ে দেশ-স্থানীয় সরকার মন্ত্রী ঢাকার মিরপুরে আড়াই মন গাঁজাসহ ৪ জন আটক উন্নয়ন কর্মকান্ড যেন জনদুর্ভোগে পরিণত না হয় সেজন্য সকল সেবা সংস্থার সমন্বয় অত্যাবশ্যকঃ মেয়র তৎকালীন জমিদার বংশের ছেলে কক্সবাজারের হুমায়ুন কবির মহান মুক্তিযুদ্ধে সরাসরি সম্মুখ যুদ্ধে অংশ গ্রহণ করে হারিয়েছেন সর্ব্বোচ্ছ সহ্য করেছেন অকথ্য নির্যাতন এর পরেও জায়গা মেলেনি মুক্তিযুদ্ধের রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতির জাতীয় অধ্যাপক রফিকুল ইসলামের মৃত্যুতে এলজিআরডি মন্ত্রীর শোক প্রতিষ্ঠার ৪৪ বছরে পদার্পণ করল চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ

পেঁয়াজের জ্বালায় আমি অস্থির হয়ে পড়েছি: বাণিজ্যমন্ত্রী

Reporter Name
  • প্রকাশিত : রবিবার, ২৪ অক্টোবর, ২০২১
  • ২৪ জন দেখেছেন

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

খাদ্যপণ্য উৎপাদন ও ভোগের সঠিক পরিসংখ্যানের অভাবে বাজার নিয়ন্ত্রণ করা কঠিন হয়ে পড়েছে বলে মনে করেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশী।

আজ রোববার (২৪ অক্টোবর) রাজধানীর একটি হোটেলে বণিক বার্তা ও বাংলাদেশ কৃষি সাংবাদিক ফোরাম (বিএজেএফ) আয়োজিত ‘বাংলাদেশের ৫০ বছর কৃষির রূপান্তর ও অর্জন’ শীর্ষক অনুষ্ঠানে এই অভিমত ব্যক্ত করেন তিনি।

মন্ত্রী বলেন, পেঁয়াজের কথা ধরেন। পেঁয়াজের জ্বালায়ই আমি অস্থির হয়ে পড়েছি। পরিসংখ্যানের একটা ঝামেলা রয়েছে। আমাদের প্রয়োজন ২৪-২৫ লাখ টন পেঁয়াজ। উৎপাদনও হয় এমনই ২৫-২৬ লাখ টন। তাহলে আমদানি কেন? এমন প্রশ্ন আসে। সেক্ষেত্রে বক্তব্য হচ্ছে প্রায় ২০ শতাংশ পেঁয়াজ আমাদের নষ্ট হয়।

তিনি বলেন, সেপ্টেম্বর-অক্টোবর থেকেই আমাদের পেঁয়াজ কমতে থাকে। তখন ভারত থেকে আনতে হয়। এ ক্ষেত্রে ভারতের উপর আমরা ৯০ শতাংশ নির্ভরশীল। ভারত বন্ধ করে দিলে অথবা দাম বাড়ালে এর প্রভাব বাজারে পড়ে।

কৃষিবিদদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, আপনারা পেঁয়াজের এমন বীজ আনেন যাতে সেপ্টেম্বর অক্টোবরে আমরা পেঁয়াজ পাই। উৎপাদন বাড়ানো গেলে, নষ্ট কমলে আগামী ৩-৪ বছরের মধ্যে পেঁয়াজের বাজারে কোনো সমস্যা হবে না।

পণ্যের মজুত ও চাহিদা সম্পর্কে কৃষি মন্ত্রণালয় সঠিক তথ্য দেয় না জানিয়ে তিনি বলেন, গত বছর কৃষি মন্ত্রণালয় হিসাব দিলো ১ কোটি ৫ লাখ টনের মতো আলু উৎপাদন হবে। আর আমরা ৭০-৭৫ লাখ টন আলু খাই। তার মানে আলু সারপ্লাস থাকবে। কিন্তু গত বছরের বাজারের চিত্র কিনতু সেটা বলে না।

তিনি বলেন, গত বছর আলুর দাম ৪০ টাকায় ঠেকলো। কোল্ডস্টোরেজ থেকে বেরোতে বেরোতে আলু ৩৫-৩৬ টাকা হয়ে গেলো, আলু এক্সপোর্ট হলো না। তার মানে হিসাবে একটা গণ্ডগোল রয়েছে। হয় আলুর উৎপাদন কম হয়েছে, নয়তো আলুর চাহিদা আরও বেশি।

দৈনিক বণিক বার্তার সম্পাদক ও প্রকাশক দেওয়ান হানিফ মাহমুদের সঞ্চালনায় উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী ড. শামসুল আলম, এফএও বাংলাদেশের কান্ট্রি রিপ্রেজেন্টেটিভ রবার্ট ডি সিম্পসন এবং ইউএসএআইডি বাংলাদেশের মিশন ডিরেক্টর ক্যাথরিন স্টিভেন্স প্রমুখ।

বিএস/কেসিবি/সিটিজি/৬ঃ৪৭পিএম

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো সংবাদ

সহযোগী প্রতিষ্ঠান

© All rights reserved © 2021 The Daily Bangladesh Shomachar
প্রযুক্তি সহায়তায় একাতন্ময় হোস্ট বিডি