1. admin@bangladeshshomachar.com : admin :
  2. mahadiislam.datasource@gmail.com : Mahadi Islam : Mahadi Islam
রবিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:৫২ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
মাঝারি ও ছোটরা এখনো দুর্দিনে নেত্রকোণায় রুরাল জার্নালিস্ট ফাউন্ডেশনের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত ঢাকা বিমানবন্দরে ২২ হাজার পিস ইয়াবাসহ সৌদিগামী এক যাত্রী আটক কাব্য টোকাইয়ের অভিষেক”গ্রন্থ আলোচনায় প্রধান অতিথি বাংলা একাডেমির সচিব খাদ্য উৎপাদনে বাস্তবমূখী হতে হবে-মেয়র রেজাউল করিম চৌধুরী রাজাখালীতে অবৈধ অস্ত্র উচিয়ে শোডাউন;শীর্ষ সন্ত্রাসী মহিউদ্দিন জনি সহযোগীসহ আটক ১০০ কোটি টাকা আত্মসাত করে ঢাকায় বানায় আলিশান বাড়ি;জুবলী ট্রেডার্স এর মালিক হায়দার আলী আটক সর্বক্ষেত্রে দৃষ্টিভঙ্গি পরিবর্তনের মাধ্যমে নারীর অগ্রযাত্রা সম্ভব -তথ্য ও সম্প্রচার সচিব নোয়াখালী সোনাইমুড়ী বিদ্যুৎস্পৃষ্টে একই পরিবারের ৪ জনের মৃত্যু সুরাজপুর-মানিকপুর ও বিএমচর ইউনিয়নে আইএসডিই এর উদ্যোগে ৩০০ পরিবারের মধ্যে খাদ্য ও সুরক্ষা সামগ্রী বিতরণ বাগীশিক নাজিরহাট পৌরসভা সংসদের সনদ পত্র বিতরন ও সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত

বাবাকে নিয়ে আরিশার ভাবনা!

Reporter Name
  • প্রকাশিত : শুক্রবার, ১০ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ৩৩ জন দেখেছেন
Spread this news to
মোঃ রুহুল আমিনঃ
আরিশা। আমার বাবার সাথে সুপার শপে যাওয়া বিরাট মুশকিলের ব্যাপার।তার আচার আচরণও হতাশাব্যঞ্জক।আমার ক্ষীণ ধারনা আমার বাবার জানাশোনাও কম,আমার এই ধারণার পেছনে যথেষ্ট শক্ত যুক্তি রয়েছে।প্রথম যুক্তি হচ্ছে- বাবা মনে করেন বাচ্চাদের চকলেট-চিপস জাতীয় খাবার আর বড়দের ধুম্রপান একই জিনিস।উনার মতে সিগারেটের প্যাকেটের মতো চকলেট আর চিপসের প্যাকেটের গায়েও বড়বড় করে লিখে দেয়া উচিৎ -চকলেট-চিপস সোনামনিদের স্বাস্থ্যের জন্য হানিকর।

যেই মানুষ বাচ্চাদের এসব নিরীহ খাবারের প্রতি এই ধারনা পোষণ করেন তার সাথে সুপার শপে যাওয়া আনন্দের কোনো ব্যাপার হবার কারন নাই।একটু আগে বাবার সাথে সুপার শপে গিয়েছিলাম।বাবার ধারনা সুপার শপ জায়গাটা নাকি মালিকেরা তাবিজ কবজ করে রাখেন।উনার এই ধারনার পেছনে উনি কারন হিসেবে উল্লেখ করেছেন- এখানে নাকি যা দেখা যায় তাই কিনতে ইচ্ছে করে।আমি সুপার শপে ঢুকে প্রথমে একটা ললিপপ হাতে নিলাম অমনি বাবা ছোঁ মেরে হাত থেকে নিয়ে গেলেন আর ফিসফিস করে বলতে লাগলেন,মা এটা খায় না, এটা খেলে তোমার দাঁত শেষ হয়ে যাবে,যদিও আমার দাত এখনো শেষ হয় নাই,মাত্র তিনটা দাঁতে গর্ত হয়েছে,দাতের সেই গর্ত নিয়েও মায়ের আহাজারির শেষ নাই।

এরপরে একটা চকলেট হাতে নিলাম বাবা সেটা হাত থেকে কেড়ে নিয়ে আগের জায়গায় রাখতে রাখতে বললেন,মা চকলেট খেলে দাতের ক্ষতি হয়,দাতে পোকা হয়,অথচ চিকিৎসা বিজ্ঞানে দাঁতের পোকা বলে কিছু আছে কিনা কে জানে।আমি এক প্যাকেট চিপস হাতে নেয়া মাত্রই বাবা যেভাবে আমার হাত থেকে কেড়ে নিলেন সেটা দেখে মনে হওয়া স্বাভাবিক যে আমি হাতে একটা এটম বোমা নিয়েছি,যেকোনো মুহুর্তে বিস্ফোরণ হতে পারে তাই আমাকে বাচাঁতে তিনি চিপসটা ঝটপট কেড়ে নিলেন এবং আমাকে সমূহ বিপদের হাত থেকে বাঁচালেন।এক প্যাকেট চুইংগাম নিলাম বাবা সেটা দেখে আঁতকে উঠে বললেন, মা রাখো এটা নিলে পুলিশে ধরবে।চুইংগামে কিনলে যদি পুলিশেই ধরবে তাহলে এটা এখানে বিক্রি হচ্ছে কিভাবে এই সহজ প্রশ্নটা আমার বাবার মাথায় কেনো এলো না কে জানে।

৩০ মিনিট পর…….।।
আমার হাত ভর্তি চকলেট, চুইংগাম আর ললিপপ এবং মুখভর্তি হাসি। বাবার মুখ থমথমে, বাবা রেগে আছেন স্পষ্ট,রাগের পালটা ক্রিয়া হিসেবে আমাকে ধোলাই টোলাই দিতেও পারছেন না।হাটবাজারে লোকজনের সামনে ছোটো বাচ্চাদের মারধোর যায় না এরকম সামাজিক রীতির প্রচলন থাকায় সম্ভবত ধোলাই দিতে পারছেন না,এসব সামাজিক রীতিনীতি থাকাটা মন্দ না।যিনি এই রীতির প্রচলন করেছেন তার সাথে দেখা হলে মনে করে ধন্যবাদ দিতে হবে। আমার মুখে তেমন ভাবান্তর নাই।বাসায় গেলে মা এসব দেখে বাবার সাথে বিরাট হৈ চৈ করবেন।

মেয়ের দাঁত সবগুলাই শেষ তবুও কোন আক্কেলে মেয়েকে এসব কিনে দিলাম এই প্রশ্ন করে পরিবেশ অশান্ত করার চেস্টা করবেন,আমার অবশ্য তাতে কিছু আসে যায় না যদিও আমি সুপার শপে আসার আগে মা’কে প্রমিজ মরে আসছি লেক্সাস বিস্কিট ছাড়া কিছুই কিনব না,শেষমেশ কিভাবে এগুলা আমার হাতে চলে এলো সেটা আমি নিজেও জানিনা।

ক্যাশ কাউন্টারের ঠিক সামনেই থাকে চকলেট, ললিপপ আর চুইংগাম, বাবা কথা বলছেন এই ফাঁকে আমি কাউন্টারে থাকা এক হাসিখুসি মুখের আন্টির হাতে গোটা কয়েক ধরিয়ে দিলাম। আন্টি কোনো ধরনের ঝামেলা না করেই একটা যন্ত্র দিয়ে টিক টিক শব্দ করে সবকিছুর দাম যোগ করে আমাকে অবাক করে দিয়ে সব আবার আমার হাতেই ধরিয়ে দিলেন।আন্টিকে দেখে মনে হলো নাহ এখনো দুনিয়ায় ভালো মানুষ আছে যাদের জন্য বাচ্চাদের চাওয়া আর পাওয় নামক ব্যাট আর বলে সংযোগ ঘটছে।

লেখকঃ মোঃ রুহুল আমিন- উপ সচিব বাংলাদেশ চা বোর্ড

বিএস/কেসিবি/সিটিজি/৬ঃ৩৭পিএম

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো সংবাদ

About Us

সম্পাদক ও প্রকাশক: ড. খান আসাদুজ্জামান
ঠিকানা: এম এস প্লাজা (৮তলা) ২৮সি/২ টয়েনবি সার্কুলার রোড, মতিঝিল, বা/এ, ঢাকা-১০০০
নিউজ সেকশন: ০১৬৪১৪২৮৬৭০
বিজ্ঞাপন: ০১৯৯৬৩০৩০৭১
মফস্বল: ০১৭১৫২২৮৩২২
ই-মেইল: bangladeshshomachar@gmail.com
ওয়েবসাইট: www.bangladeshshomachar.com
ই-পেপার: www.ebangladeshshomachar.com
© All rights reserved © 2021 The Daily Bangladesh Shomachar
প্রযুক্তি সহায়তায় একাতন্ময় হোস্ট বিডি