1. admin@bangladeshshomachar.com : admin :
  2. mahadiislam.datasource@gmail.com : Mahadi Islam : Mahadi Islam
বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৫:০২ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
মাঝারি ও ছোটরা এখনো দুর্দিনে সমন্বিত প্রচেষ্টায় অল্পসময়ের মধ্যেই ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে আসবে-এলজিআরডি মন্ত্রী রোহিঙ্গা সঙ্কট প্রশ্নে প্রধান আন্তর্জাতিক শক্তিগুলোর নিষ্ক্রিয়তা বাংলাদেশকে মর্মাহত করেছেঃ প্রধানমন্ত্রী সুনামগঞ্জের শাল্লার সেই ঝুমন দাশ অবশেষে জামিন পেলেন চট্টগ্রামে MLM ব্যবসার ফাঁদে পড়ে সর্বস্বান্ত অনেকের মত আমার এক ফেসবুক বন্ধু! অতিরিক্ত মাদক সেবনে বন্ধুর মৃত্যুর দায় এড়াতে লাশ গুম করে অপহরণ নাটক;অতঃপর আটক এমএল কোম্পানী সুইসড্রাম কোম্পানির পরিচালক কাজী আল-আমিনসহ ১৭ জন আটক শীঘ্রই তৈরি হবে আইপি টিভি রেজিস্ট্রেশন নির্দেশিকা -তথ্যমন্ত্রী মানুষের জন্য কল্যাণকর সকল প্রকল্প বাস্তবায়িত হবে: স্থানীয় সরকার মন্ত্রী ইউপি চেয়ারম্যান কর্তৃক অপর ইউপি চেয়ারম্যানকে চড়-থাপ্পর করোনা মহামারীতে জনকল্যাণে নিরলস কাজ করছেন প্রকৌশলী মো:আবদুস সবুর

বিদেশী ক্রাইম সিরিয়াল দেখে হত্যাকান্ডের পরিকল্পনা;হত্যাকান্ডের মূলহোতাসহ আটক ৩

Reporter Name
  • প্রকাশিত : মঙ্গলবার, ৩১ আগস্ট, ২০২১
  • ২৫ জন দেখেছেন

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
মোবাইল ফোনে অপরাধ সংক্রান্ত বিদেশী সিরিয়াল দেখে হত্যাকান্ডের পরিকল্পনা করে তারা। রাজধানীর অদূরে আশুলিয়ার জামগড়া এলাকায় অজ্ঞাত গলিত মৃতদেহের (কঙ্কাল) পরিচয় উদ্ঘাটন এবং এই ক্লুলেস হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত মূলহোতা মোঃ সাব্বির (২২) সহ ৩ জনকে বিভিন্ন জেলা হতে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১।

আজ মঙ্গলবার ৩১ আগস্ট বিকাল ৪ঃ০০ টার সময় অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়। আটককৃত আসামীরা হলেন,মোঃ আব্দুস সুকুরের ছেলে মোঃ সাব্বির হোসেন (২২) মোঃ চাঁন প্রমানিকের ছেলে মোঃ আনোয়ার হোসেন (২০) এবং মোঃ রায়হানের ছেলে মোঃ সুরুজ আলী (১৮)।

র‍্যাব সুত্রে জানা যায়,গত ২৮ আগস্ট দুপুরে ঢাকা জেলার আশুলিয়া থানাধীন জামগড়া এলাকায় একটি ৫তলা ভবনের ৩য় তলার ফ্ল্যাটের গোসলখানার পানির ড্রাম হতে অজ্ঞাত এক ব্যক্তির গলিত মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। নিহত ব্যক্তির লাশ পচে কঙ্কাল হয়ে যাওয়ায় নিহতের পরিচয় সনাক্ত করা সম্ভব হচ্ছিল না। উক্ত চাঞ্চল্যকর ক্লুলেস হত্যাকান্ডের প্রেক্ষিতে র‌্যাব-১ তাৎক্ষনিকভাবে নিহত অজ্ঞাতনামা ব্যক্তির পরিচয় সনাক্ত এবং হত্যাকারীদের খুঁজে বের করে আইনের আওতায় আনতে দ্রুততার সাথে ছায়া তদন্ত শুরু করে এবং গোয়েন্দা নজরদারী বৃদ্ধি করে।

র‍্যাব-১ এর সহকারী পরিচালক (মিডিয়া অফিসার) সহকারী পুলিশ সুপার নোমান আহমদ জানান, র‍্যাব-১ এর একটি আভিযানিক দল দ্রুততার সাথে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে এই চাঞ্চল্যকর ক্লুলেস হত্যাকান্ডের রহস্য উদ্ঘাটনে সোর্স নিয়োগ করে এরই ধারাবাহিকতায় আভিযানিক দলটি নাটোর জেলার গুরুদাসপুরে অভিযান পরিচালনা করে তিন জনকে আটক করা হয়।  ধৃত আসামীদের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে বর্ণিত হত্যাকান্ডের সাথে তারা সরাসরি জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে এবং কঙ্কালপ্রায় গলিত মৃতদেহটি জনৈক জয়নালের বলে নিশ্চিত করে।

তিনি আরও জানান,আসামীদের জিজ্ঞাসাবাদে আরও জানা যায়, তারা টিভি এবং মোবাইল ফোনে অপরাধ সংক্রান্ত বিদেশী সিরিয়াল দেখে এই হত্যাকান্ডের পরিকল্পনা করে এবং গ্রেফতার এড়ানোর লক্ষ্যে তাদের ব্যবহৃত মোবাইল ফোনও বন্ধ রাখে। গ্রেফতারকৃত আসামীর বিরম্নদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।

ঘটনার বিবরণে জানা যায় যে, আসামী মোঃ সাব্বির হোসেন (২২) এবং সাথী (১৭) পরস্পর স্বামী-স্ত্রী। সাব্বির আশুলিয়ার একটি গার্মেন্টেসে চাকুরী করার সুবাধে তার স্ত্রী সাথীকে নিয়ে আশুলিয়ার জামগড়া এলাকায় গত ফেব্রুয়ারি হতে ইদ্রিস কাজীর ৫ম তলা বাসার ৩য় তলায় একটি ফ্ল্যাটে স্বপরিবারে ভাড়ায় বসবাস করত। নিহত ভিকটিম জয়নাল (২০) এবং সাব্বির পরস্পর গ্রামের বন্ধু হওয়ায় সে সাব্বিরের ভাড়া বাসায় মে মাস হতে সাবলেট হিসেবে বসবাস করতে থাকে। একই বাসায় বসবাসের ফলে সাব্বিরের স্ত্রীর সাথে জয়নালের সু-সম্পর্ক তৈরী হয়, যা সাব্বির বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্ক হিসেবে সন্দেহ করে। এক পর্যায়ে তাদের মধ্যে মনোমালিন্যের সৃষ্টি হয়। মনোমালিন্যের জের ধরে গত জুন মাসে সাব্বির তার স্ত্রী সাথীকে শ্বশুর বাড়ি লালমনিরহাটে পাঠিয়ে দেয়। তার স্ত্রীকে বাড়িতে পাঠিয়ে দেওয়ার পর সাব্বির জয়নালকে হত্যার পরিকল্পনা করে। হত্যা-পরিকল্পনার অংশ হিসেবে সাব্বির জয়নালকে চাকুরী দেওযার কথা বলে আগস্ট মাসের প্রথম সপ্তাহে পূনরায় তার ভাড়া বাসায় নিয়ে আসে। অতঃপর জয়নালকে হত্যার জন্য সাব্বির পরিকল্পিতভাবে তার গ্রামের বন্ধু আনোয়ার এবং সুরুজকে ঢাকায় নিয়ে আসে। পরবর্তীতে ১৪ আগস্ট রাতে সাব্বির ভিকটিম জয়নালকে আশুলিয়ার জামগড়া এলাকায় তার ভাড়া বাসায় পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী আনোয়ার এবং সুরুজের সহায়তায় গলাটিপে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে। হত্যা করার পর লাশ গুম করার জন্য একটি পানির ড্রামের মধ্যে ভিকটিমের মৃতদেহ রেখে দরজা বন্ধ করে বাসায় তালা দিয়ে তারা সকলে পালিয়ে যায়।

বিএস/কেসিবি/সিটিজি/৭ঃ৫০পিএম

 

 

 

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো সংবাদ

সহযোগী প্রতিষ্ঠান

© All rights reserved © 2021 The Daily Bangladesh Shomachar
প্রযুক্তি সহায়তায় একাতন্ময় হোস্ট বিডি