1. admin@bangladeshshomachar.com : admin :
একটি সংবাদ সন্মেলন ও কিছু কথা! - দৈনিক বাংলাদেশ সমাচার
সোমবার, ০২ অগাস্ট ২০২১, ০২:৪৫ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
মাঝারি ও ছোটরা এখনো দুর্দিনে ৮ মাসের এক অন্তঃসত্ত্বা নারী চুরি করতে গিয়ে ধরা! শোক বার্তাঃ বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার হয়েছে; তবে ষড়যন্ত্রের পেছনে কারা ছিল একদিন বের হবে : প্রধানমন্ত্রী করোনা প্রতিরোধে মাস্ক ব্যবহারের বিকল্প নেই: মোস্তারী মোরশেদ স্মৃতি আটক দুই মডেল হচ্ছেন রাতের রাণী!মদ ও ইয়াবা খাইয়ে আপত্তিকর ছবি তুলে ব্ল্যাকমেইল করতেন চট্টগ্রামে গত ২৪ ঘণ্টায় ১১ জনের মৃত্যু, আক্রান্ত ৯৮৫ গোয়েন্দা পুলিশের অভিযান;মডেল পিয়াসার পর ইয়াবাসহ আটক মৌ আক্তার কল দিলেই বিনামূল্যে মিলবে আইসিইউ এম্বুল্যান্স সেবা হেলেনার বিপুল সম্পদের সন্ধান পেয়েছে র‍্যাব! সিএমপি দক্ষিণের প্রতিটি থানায় মিলবে ফ্রি পরিবহন সেবা

একটি সংবাদ সন্মেলন ও কিছু কথা!

Reporter Name
  • প্রকাশিত : সোমবার, ৫ জুলাই, ২০২১
  • ৫ জন দেখেছেন
Spread this news to

সংবাদ সম্মেলন বা প্রেস কনফারেন্স হলো এক ধরনের আলোচনামূলক সাক্ষাৎকার। সেখানে যে কোনো ব্যাক্তি, দল, সামাজিক সংগঠন, বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান, সংস্থা বা সংগঠন বিশেষ বিষয়ে তাদের বক্তব্য বা কর্মকান্ডের উদ্দ্যেশ্য সম্পর্কে জনগণকে জানাতে চায়। আবার কোনো বিষয় প্রচার মাধ্যমে প্রকাশের উদ্দেশ্যে সাংবাদিকগণকে জানানোর লক্ষ্যে এক বা একাধিক ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের সাংবাদিক-আহ্বান করে থাকে। সংবাদ সম্মেলনে সংবাদিকদের একটি নির্দিষ্ট স্থানে আমন্ত্রণ জানানো হয়।

সাংবাদিকের উপস্থিতিতে সংশ্লিষ্টরা তাদের বক্তৃতার বিষয় উপস্থাপনের পর সাংবাদিকদের প্রকাশ করার সুযোগ দেন। সংবাদিকরা প্রশ্ন করে ঘটনা সম্পর্কে বিস্তারিত জানার সুযোগ পায়।পরবর্তীতে বিস্তারিত অবগত হয়ে সংবাদ মাধ্যমে তুলে ধরেন। যাতে করে একজন ভুক্তভোগীর যেমন প্রতিকার লাভে সহায়তা হয় তেমনি কোন ব্যাক্তি বা গোষ্ঠী তার বক্তব্য বা কর্মকান্ড জনগনের কাছে প্রকাশে সহায়ক হয়।

সংবাদ সন্মেলন আহ্বানকারীর উদেশ্য থাকে তার অভাব, অভিযোগ, অনুযোগ, দাবি দাওয়া সাংবাদিকদের কাছে তুলে ধরার মাধ্যমে জনগন ও সরকারের কাছে পৌঁছে দেয়া। সংবাদ সন্মেলন যে কেউ আহ্বান করতে পারে। তা হতে পারে প্রেসক্লাবে বা কোন সংগঠনের অফিসে অথবা কোন রেস্টুরেন্টে।সংবাদ সন্মেলন আহ্বানকারী তার সুবিধামত স্থানে সংবাদ সন্মেলন আহ্বান করতে পারেন।

এবার সংবাদ সন্মেলন আহ্বান কারীদের উদেশ্যে কিছু কথা না বললে নয়, সংবাদ সন্মেলন আহ্বান করার পর অনেকেই সাংবাদিক বা প্রতিনিধি প্রেরণের জন্য চিঠি দিয়ে থাকেন। আপনাদের আহ্বানে অনেক সাংবাদিক উপস্থিত থাকেন। তারা আপনাদের বক্তব্য মিডিয়ার মাধ্যমে জনগন তথা সরকারের কাছে তুলে ধরেন। তা হতে পারে প্রিন্ট, অনলাইন ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়া।

বেশিরভাগ ক্ষেত্রে সরকারী প্রতিষ্ঠান গুলো সাংবাদিকদের সন্মানে চা নাস্তার ব্যবস্থা করে থাকেন। আবার ক্ষেত্র বিশেষে বেসরকারি কোন প্রতিষ্ঠান বা কোন ব্যাক্তি অথবা কোন গোষ্ঠী সংবাদ সন্মেলনে আগত সাংবাদিকবৃন্দের জন্য সন্মানি দিয়ে থাকে। সিটে বসা সাংবাদিকদের পেকেটে করে সন্মানিটা দিয়ে থাকে। এটাই যথেষ্ট সন্মানের। সর্বক্ষেত্রে এমনটাই করা উচিত বলে আমি মনে করি। অনেক ক্ষেত্রে দেখা যায় সাংবাদিক সন্মেলন শেষে সাংবাদিকদের আপনাদের বিবেক বোধদয় না হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হয়। কখনো হাত প্রসারিত হয় আবার কখনো হয় না। কারন অনেকে ভাবেন সাংবাদিকদের ডাকলেই তো আসে ওনাদের আবার সন্মানি দিতে হবে কেন? হ্যাঁ কেন সন্মানি দিবেন? সন্মানি এই জন্যই দিবেন একজন সাংবাদিক আপনার সংবাদ সন্মেলনে আসা যাওয়ায় তাকে যে কোন ধরনের পরিবহণ ব্যবহার করতে হয়েছে আর তাতে পকেট থেকে খোয়া গেছে টাকা। এবার নিশ্চয়ই বুঝতে পারছেন কেন সন্মানীটা দিতে হবে।

বেশীরভাগ ক্ষেত্রে দেখা যায় পরিচিত কোন সাংবাদিককে আগত সাংবাদিকদের সন্মানি দেওয়ার দায়িত্ব বা টেন্ডার দেয়া হয়। আর তাতে তো কোন কথা নেই সেই সাংবাদিক মাশাই তার পছন্দের লোকদের/সাংবাদিকদের মাঝে বিতরণ করেন। মোটকথা ওনার পরিচিত না হলে সন্মানি কেউ পাবে না। অনেক সময় সন্মানীর টাকার জন্য হাতাহাতিতে গড়ায়। যা সাংবাদিকদের জন্য বড় লজ্জার। নিউজ আসুক না আসুক তাতে ওনার কিছু যায় আসে না। সেই সাথে আছে নিজেদের মধ্যে ভেদাভেদ। যা অনেক ক্ষত্রে বাড়াবাড়ি পর্যায়ে গিয়ে দাঁড়ায়। আজকাল অনেক সাংবাদিক এই সকল কারনে আত্মমর্যাদাবোধ বজায় রাখা ও পেশাগত কাজের চাপে সাংবাদিক সন্মেলনে আসতে পারে না বা আসতে চায় না। এতে কিন্তু একজন সাংবাদিকের দায়িত্ববোধ এর অভাবকে দায়ী করতে পারবেন না কোন ভাবেই। আত্মমর্যাদাবোধ লাভের অধিকার সবার আছে। আমি নিজেও সেই দোষে দুষ্ট।

পরিশেষে, একটি কথাই বলব সংবাদ সন্মেলন শেষে সাংবাদিকদের সন্মানি দিলে সন্মানের সহিত দেন। জাতির বিবেক হিসাবে সাংবাদিকরা আপনাদের কাছ থেকে এই সন্মানটুকু প্রত্যাশা করে। আপনার পরিচিত সাংবাদিক থাকতে পারে কোন দোষের নয়। কিন্তু সন্মানি দেওয়ার দায়িত্ব বা টেন্ডার ওনাদের না দিয়ে আপনারা নিজ হাতে দেন। তাতে সাংবাদিকরা তাদের সন্মানি পাবে এবং সন্মানহানীও ঘটবেনা। সংবাদ সন্মেলন শেষে কোন সাংবাদিককে যেন সন্মানীর জন্য অপেক্ষা করতে না হয়। আপনার নিয়োগকরা ব্যাক্তির পিছনে যেন কোন সাংবাদিককে লাইন ধরে না দাঁড়াতে হয়। সন্মানী দিলে প্রত্যেক সাংবাদিকের চেয়ারে পৌঁছে দিন। আর সাংবাদিকদের বলব আপনারা সন্মেলন শেষে ওনাদের পিছনে সন্মানীর জন্য দাঁড়াবেন না। নিজের সন্মান ও নিজ পেশার মর্যাদা বাড়াতে আরো বেশি সচেষ্ট হোন। মহান এই পেশার প্রতি আরো বেশি দায়িত্ববান হোন। নিজের পেশাকে সন্মান দিতে শিখুন। আশাকরি সবার বোধদয় হবে এমনটাই প্রত্যাশা।

লেখকঃ কমল চক্রবর্তী -সিনিয়র স্টাফ রিপোর্টার ও চট্টগ্রাম বিভাগীয় সমন্বয়কারী- দৈনিক বাংলাদেশ সমাচার,
দ্যা ডেইলি বাংলাদেশ ডায়েরি ও মাসিক অপরাজেয় বাংলাদেশ

চীপ নিউজ এডিটর- নিউজ আপডেট২৪আওয়ার.কম

বিএস/কেসিবি/সিটিজি/১ঃ৪৭পিএম

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো সংবাদ

About Us

সম্পাদক ও প্রকাশকঃ ড. খান আসাদুজ্জামান
ঠিকানাঃ এম এস প্লাজা (৮তলা) ২৮সি/২ টয়েনবি সার্কুলার রোড, মতিঝিল, বা/এ, ঢাকা-১০০০
নিউজ সেকশনঃ ০১৬৪১৪২৮৬৭০
বিজ্ঞাপনঃ ০১৯৯৬৩০৩০৭১
মফস্বলঃ ০১৭১৫২২৮৩২২
ই-মেইলঃ bangladeshshomachar@gmail.com
ওয়েবসাইটঃ www.bangladeshshomachar.com
ই-পেপার: www.ebangladeshshomachar.com
© All rights reserved © 2021 The Daily Bangladesh Shomachar
প্রযুক্তি সহায়তায় একাতন্ময় হোস্ট বিডি