হত্যা মামলায় রামগঞ্জ আসনের সাবেক এমপি আউয়াল গ্রেফতার

রাজধানীর পল্লবীতে জমি-জমা সংক্রান্ত দ্বন্দ্বের জেরে প্রকাশ্যে সাহিনুদ্দিন (৩৩) নামে একজনকে কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় সাবেক সংসদ সদস্য এম এ আউয়ালকে গ্রেফতার করেছে র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব)।

সাখাওয়াত হোসেন, রামগঞ্জ (লক্ষ্মীপুর) প্রতিনিধি :

বৃহস্পতিবার (২০ মে) সকালে র‍্যাব সদর দফতর থেকে পাঠানো এক ক্ষুদে বার্তায় এতথ্য নিশ্চিত করা হয়।

এম এ আউয়াল লক্ষ্মীপুর-১ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য ও ইসলামী গণতান্ত্রিক পার্টির চেয়ারম্যান, তরিকত ফেডারেশনের সাবেক মহাসচিব।

বিষয়টি নিশ্চিত করে র‌্যাব সদর দফতরের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন জানান, র‍্যাবের অভিযানে ভৈরব থেকে এম এ আউয়ালকে গ্রেফতার করা হয়। তিনি রাজধানীর পল্লবীতে সন্তানের সামনে বাবাকে নৃশংসভাবে কুপিয়ে হত্যাকাণ্ডের মূল পরিকল্পনাকারী ও হত্যা মামলার ১ নং আসামি।

বৃহস্পতিবার বিকেল ৪টায় কারওয়ান বাজার র‍্যাব মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ ব্যাপারে বিস্তারিত জানানো হবে। 

এর পূর্বে হত্যা মামলায় জড়িত দুইজনকে আটক করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। 

সাবেক সাংসদ এম এ আউয়াল লক্ষ্মীপুর জেলার রামগঞ্জ উপজেলার ইছাপুর ইউনিয়নের দক্ষিণ নারায়নপুর গ্রামের মৃত হাজী আবদুর রশিদ মিঝির ছেলে। ৪ ভাইয়ের মধ্যে দুই ভাই থাকেন অ্যামেরিকায়, দুই ভাই এম এ আউয়াল ও এম এ সালাম থাকেন বাংলাদেশে। তিনি দীর্ঘদিন যাবত জমি বিক্রয় প্রতিষ্ঠানের সাথে সর্ম্পৃক্ত রয়েছেন। হাবেলী গ্রুপ নামের একটি প্রতিষ্ঠানেরও কর্ণধার এম এ আউয়াল।এদিকে লায়ন এমএ আউয়াল এর আটকের সংবাদ রামগঞ্জে ছড়িয়ে পড়লে তাঁর ভক্ত ও দলের নেতাকর্মীদের মাঝে চরম হতাশা দেখা যায়।
রামগঞ্জে তার দলের সমন্বয়কারী নাজমুল হোসেন বাপ্পি, মনির হোসেন সহ অনেকে জানান,
লায়ন এমএ আউয়াল নিয়মিত মামলার আসামী।  আমরা সবাই আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। আইনের গতিতে রামগঞ্জের জনতার নেতা মুক্তি পেয়ে জনতার মাঝে ফিরে আসবে এমন আশাবাদী তারা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *