নোয়াখালীতে ঝড়ের বসত ঘর উড়ে যাওয়া বিধবার পাশে জেলা প্রশাসক


ইব্রাহিম খলিল শিমুল, নোয়াখালীঃ-

 নোয়াখালী সদর উপজেলার নেওয়াজপুর ইউনিয়নে বাহাদুরপুর গ্রামে এক বিধবা মহিলার ঘর দুপুরে প্রচন্ড ঝড়ে উড়ে চলে যায়।
একটি ঘরের জন্য চরম কষ্টে দিন পার করছেন বিধবা মনোয়ারা বেগম। তার কষ্টের অবসান হচ্ছে। নোয়াখালীর জেলা প্রশাসক (ডিসি) মোহাম্মদ খোরশেদ আলম খান বিধবা মনোয়ারা বেগমকে একটি ঘর তৈরি করে দেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন। 
বৃহস্পতিবার (০৬ মে) দুপুর ১২টার দিকে জেলা প্রশাসক নিজস্ব তহবিল থেকে ঘর নির্মাণের জন্য ওই বিধবাকে টাকা প্রদান করেছেন। 
এর আগে গত মঙ্গলবার (০৪ মে) দুপুরে কালবৈশাখী ঝড়ে বিধবা মনোয়ারা বেগমের একমাত্র ঘরটি উড়ে যায়। ঘর নির্মাণের অর্থ না থাকায় তিনি অন্যের বাড়িতে গিয়ে থাকতেন। মাথা গোঁজার ঠাঁই হারিয়ে দিশেহারা হয়ে পড়েছিলেন তিনি। এ নিয়ে মঙ্গলবার রাতে ঐ এলাকার এক ছেলে বসতঘরের ছবিগুলো নোয়াখালীর জনপ্রিয় সামাজিক সংগঠন “স্টুডেন্টস্ অব নোয়াখালী” এর ফেসবুক গ্রুপে পোস্ট করলে বিষয়টি সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা রিমন ভূইয়া নোয়াখালীর জেলা প্রশাসক খোরশেদ আলম খানকে অবহিত করে। ছবিগুলো দেখে পরের দিনই ঐ মহিলাকে ডিসি অফিসে আসতে বলে প্রয়োজনীয় কাগজপত্রসহ নোয়াখালীর জেলা প্রশাসক।
জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ খোরশেদ আলম খান বলেন, বিধবা মনোয়ারা বেগমের একমাত্র ঘরটি ঝড়ে ভেঙে পড়েছে। বিষয়টি দেখে আমার খুব খারাপ লাগে। আমি ঘর নির্মাণ বাবদ নগদ অর্থ দিয়েছি। এছাড়াও স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানের তত্ত্বাবধানে খুব দ্রুত ঘরটি নির্মাণ করে দেওয়া হবে। 
সহায়তা পেয়ে বিধবা মনোয়ারা বেগম বলেন, ডিসি স্যার আমাকে মাথা গোঁজার ঠাঁই করে দিলেন। আমি স্যারের কাছে আজীবন ঋণী হয়ে থাকবো। জেলা প্রশাসকের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে তার মঙ্গল ও দীর্ঘায়ু কামনা করেন তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *