বসুরহাট এলাকায় ৫টি ককটেল উদ্ধার


নোয়াখালী প্রতিনিধি-
নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে সেতুমন্ত্রীর ছোট বোন তাহেরা বেগমের (৬৯) বাসায় ককটেল হামলার ঘটনায় অবিস্ফোরিত ৫টি তাজা ককটেল উদ্ধার করেছে পুলিশ। পরে তারা পানির বালতির মধ্যে ডুবিয়ে ককটেল গুলো নিস্ক্রিয় করে।
রোববার (২৫ এপ্রিল) সকাল ১০টায় উপজেলার বসুরহাট পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ডের কোর্ট বিল্ডিং সংলগ্ন ওই বাসার পাশ থেকে ককটেল গুলো উদ্ধার করা হয়।
কোম্পানীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মীর জাহেদুল হক রনি ককটেল উদ্ধারের সত্যতা নিশ্চিত করেন। তিনি আরো জানান, এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত কোন লিখিত অভিযোগ দায়ের হয়নি।  লিখিত অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
উল্লেখ্য, এর আগে শনিবার দিবাগত রাত ১২টা ২০ মিনিটের দিকে উপজেলার বসুরহাট পৌরসভার ৯নম্বর ওয়ার্ডের মন্ত্রীর ছোট বোনের বাসা তাহেরা মঞ্জিলকে লক্ষ্য করে এ হামলা চালানো হয়।
খবর পেয়ে তাৎক্ষণিক কোম্পানীগঞ্জ থানার (ওসি) ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে এবং বাসার সামনে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করে।
তাহেরা বেগম জানান, তার বড় ছেলে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আ.লীগের মুখপাত্র হিসেবে দায়িত্ব পালন করছে। উপজেলা আ.লীগের রাজনীতি নিয়ে তার বড় ছেলের সাথে তার ছোট ভাই বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জার সাথে বিরোধ চলছে। ওই বিরোধের জের ধরে মির্জা কাদেরের কয়েকজন অনুসারী এই ককটেল হামলার ঘটনা ঘটিয়েছে। একের পর এক ককটেল বিস্ফোরণের আওয়াজে আমরা বাসার ভিতরে সকলে আতঙ্কিত হয়ে পড়ি।  
সেতুমন্ত্রীর ভাগনে হুমায়ন রশীদ মিরাজ জানান, আমার বড় ভাই ঢাকায় অবস্থান করছে। বাসার ভিতরে মা, আমি এবং আমার স্ত্রী ছিলাম। রাত ১২টা ২০মিনেটের দিকে মির্জা কাদেরের অনুসারী বসুরহাট পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ডের কেচ্ছা রাসেল, সাজু, দীপক, ৯ নম্বর ওয়ার্ডের জিসানসহ ১০-১৫ জন আমাদের বাসার পিছন থেকে বাসাকে লক্ষ্য করে ককটেল হামলা চালায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *