হাইকোর্ট ও স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের নির্দেশ অমান্য ফেনীতেও স্পষ্ট অক্ষরে লেখাহচ্ছে না রোগীর ব্যবস্থাপত্র।

মোঃ ইউনুছ ভূঞাঁ সুজন বিশেষ প্রতিনিধি,

 রোগীর ব্যবস্থাপত্রে (প্রেসক্রিপশন) ঔষধের নাম পাঠযোগ্য করতে হাইকোর্ট ও স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা মানছে না ফেনীর চিকিৎসকরা। বড় অক্ষর(ক্যাপিটাল লেখার) এবং স্পষ্টাক্ষরে ঔষধের নাম লেখার নির্দেশনাটি চিকিৎসক দের কাছে উপেক্ষিত। অভিযোগ আছে,ব্যবস্থা পত্রের লেখা দূর্বোধ্য  হওয়ার কারণে প্রতিদিন বিড়ম্বনার শিকার হচ্ছে অসংখ্য রোগী ও তাদের স্বজনরা। 
ব্যবস্থা পত্র স্পষ্টাক্ষরে না হওয়ায় অনেক সময় ফার্মেসী গুলো যেমন ভুল ঔষধ দিয়ে থাকে তেমনি না বুঝে অনেক ক্ষেত্রে রোগী ও ভুল ঔষধ সেবন করে।
যা মৃত্যুর কারণ হয়ে দাঁড়ায়। অথচ  গত বছর একাধিকবার হাইকোর্ট থেকে চিকিৎসক দের হাতের লেখা প্রেসক্রিপশন পাঠোপযোগী করতে নির্দেশনা দেয়া হয়।একইভাবে হাইকোর্টের নির্দেশ পালনে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে ও জারী করা হয়েছিল পরিপত্র। সবশেষে  রোগীর প্রেসক্রিপশনে ঔষধের ‘জেনেরিক’ নাম লিখতে কেন নির্দেশ দেয়া হবেনা-তা জানতে চেয়ে  রুল জারি করেছিলেন হাইকোর্ট।
ওই সময়ের  তৎকালীন স্বাস্থ্য সচিব , স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক সহ  সাত বিবাদিকে চার সপ্তাহের মধ্যে রুলের জবাব দিতে নির্দেশ দেয়া  হয়েছিল। কিন্তু নির্দেশনা দেওয়ার  পর এতদিন  অতিবাহিত হতে চললেও ফেনীতে  এখনো ক্যাপিটাল লেটারে রোগীর ব্যবস্থাপত্র লেখার নজির মিলছে না। ফেনী জেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, ফেনী ডায়াবেটিস হাসপাতাল সহ ফেনী জেলাধীন উপজেলার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসকরাও মানছে না  এ নির্দেশনা।
এদিকে, দীর্ঘ দিনের অভ্যাসের কারণে  হঠাৎ করেই  ক্যাপিটাল লেটারে প্রেসক্রিপশন লিখতে সময় লাগছে বলে জানান চিকিৎসকরা। তবে কিছু সময় লাগলেও  অনতিবিলম্বে নির্দেশনাটি পুরোপুরি বাস্তবায়িত হবে এমন দাবি চিকিৎসক দের।
অন্য দিকে  স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অধীনে থাকা  চিকিৎসকরা ব্যক্তিগত চেম্বারে দেখা রোগীর প্রেসক্রিপশনের ক্ষেত্রে আলাদা কোন নির্দেশনা না থাকায় এ বিষয়ে তদারকি করতে পারছেননা বলে জানায় ফেনীর সিভিল সার্জন সুত্রে। 
সরেজমিনে গত কয়েক দিন  ফেনী জেলার বিভিন্ন হাসপাতালের বহির্বিভাগ ও জরুরি বিভাগে গিয়ে দেখা যায়, বেলা ১২ টা থেকে লেখা একাধিক প্রেসক্রিপশনে  অস্পষ্টতা ঠিক আগের মতই।এ ধরণের প্রেসক্রিপশন হাতে অনেক রোগী কে সমস্যায় পড়তে ও দেখা গেছে। এছাড়া বিভিন্ন ফার্মেসি মালিকের সাথে কথা বলে জানা যায়, ঔষধ কিনতে আসা প্রেসক্রিপশনের মধ্যে এপর্যন্ত একটা ও ক্যাপিটাল লেটারে  লেখা দেখা যায়নি। 
নির্দেশনা  বাস্তবায়ন করতে সময় লাগছে বলে  স্বীকার করেন  একাধিক চিকিৎসক ও ফেনী সিভিল সার্জন অফিস সুত্র।ওই সুত্র আরো জানায়, দীর্ঘ দিনের অভ্যাস হঠাৎ পরিবর্তন  করতে পারছেন না অনেক চিকিৎসক। তবে এই বিষয়ে চিকিৎসক দের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে, ক্যাপিটাল লেটারে প্রেসক্রিপশন লেখাটাও তাদের অভ্যাসে পরিণত করতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *