নোয়াখালীতে আম গাছের সাথে বেঁধে পাশবিক নির্যাতন করা হয়েছে এক বৃদ্ধা মহিলাকে

মোঃ ফয়সাল,সদর(নোয়াখালী) প্রতিনিধিঃ
গত ২৮ শে মার্চ-২১ইং (রবিবার) সন্ধ্যা ৬ টায়,নোয়াখালীর এওজবালিয়া ইউনিয়নে এক বৃদ্ধা মহিলাকে  আম গাছের সাথে বেঁধে রেখে অমানবিক নির্যাতন করার ঘটনা ঘটেছে।

জানা যায়,স্বামীহারা অসহায় বৃদ্ধা মহিলাটি ভিক্ষা করে কোনোভাবে সংসার চালায় এবং তার একমাত্র ছেলে (২৮) দিনমজুর হওয়ায় পার্শ্ববর্তী অভিযুক্তদের সন্মানে আঘাত লাগে বলে তাদেরকে লোকবল দিয়ে ভিটে ছাড়া করার পাঁয়তারা করে।তারা এতে অনিচ্ছা প্রকাশ করলে বিভিন্নভাবে নির্যাতন চালায়।
তারই পরিপ্রেক্ষিতে,রবিবার সন্ধ্যায়,প্রধান অভিযুক্ত মোঃ হাসেম (৫৫) এর নির্দেশে তার স্ত্রী আজমালা (৫০) ও মেয়ে পারভিন (২৮) পূর্বপরিকল্পিতভাবে বেআইনি ভাবে ভিকটিমের উঠানে প্রবেশ করে ভিকটিমকে অকথ্য ভাষায় গালাগাল করে। এরপর ভিকটিমের ঘরে ঢুকে তাকে নামাজের বিচানা থেকে  টেনে-হিঁচড়ে এনে এলোপাতাড়ি মারধর শুরু করে।
 অভিযুক্তরা তাদের উঠানের একটি আম গাছের সাথে বেঁধে রেখে মারধরের পর লাঠি দিয়ে মারত্নক ভাবে আঘাত করে।ফলে বৃদ্ধার এক হাত ও এক পা ভেঙে যায়।
ভিকটিম বর্তমানে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আছেন।
প্রধান অভিযুক্ত মোঃ হাসেম (৫৫) বাংলাদেশ পুলিশের একজন কর্মকর্তা। সে সুধারাম থানার ৮নং এওজবালিয়া ইউনিয়নের নন্দনপুর মনোহর আলী পাইক বাড়ির বাসিন্দা।

অসহায় এই বৃদ্ধার প্রতি এমন অমানবিক নির্যাতনের ঘটনাটির তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন এলাকাবাসী এবং দোষীদের উপযুক্ত শাস্তির দাবি জানান।
 পরে তার ছেলে বাদী হয়ে থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করলে  সুধারাম থানার ওসি সাহেদ উদ্দিন,দ্রুত তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নিবেন বলে জানিয়েছেন। 
উল্লেখ্য, এওজবালিয়া ইউনিয়ন জনকল্যাণ সংস্থা নামক একটি সেচ্চাসেবী সংগঠন ভিকটিমকে সর্বাত্মক সহযোগিতা দিয়ে পাশে আছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *