ফাজিলপুর জায়গা বিরোধের বাদী-বিবাদী পক্ষের প্রশাসনের নিরব ভূমিকার অভিযোগ



কামরুল হাসান নিরব
ফেনী সদর উপজেলার ফাজিলপুর ইউনিয়নের চাকলাদার বাড়ির মৃত: বশির আহম্মেদ’র ছেলে দরিদ্র কৃষক বেলায়েত হোসেন’র পৈতৃক ওয়ারিস সূত্রে প্রাপ্ত বসত ভিটা ও বাগান বি.এস ডি.পি খতিয়ানের দাগ নং-৬৬০৮,খতিয়ান-১৭৭৬, জমির পরিমান ৩২ ডিং,আন্দরে ৭ডিং জায়গা সঠিক ভাবে ভোগদখল কারী।কিন্তু কোন বিরোধ ছাড়াই তার পাশ্ববর্তী প্রতিবেশী মৃত নুরুল ইসলামের ছেলে মুসা মিয়া ও দৌহিত্র নুর নবী জাবেদের নেতৃত্বে ১০/১২ জনের একদল সসস্ত্র সন্ত্রাসী জোর পূর্বক কিছুদিন পূর্বে জায়গাটি দখল করে।এলাকার সূত্র মতে ঘটনার দিন দিনের প্রহরে চাপাতি,চাইনিজ কুড়াল,হাতুড়ি,হক স্টিক নিয়ে একদল সন্ত্রাসীর পাহারায় বাইরের থেকে শ্রমিক নিয়ে এসে বেলায়েত মিয়ার বাগানের ফলজ গাছ(বর্তমান বাজার মূল্য আনুমানিক বিশ হাজার টাকা)সহ বিভিন্ন বনজ গাছ কেটে ট্রাক্টর যোগে অন্যত্র সরিয়ে নিয়ে বিক্রি করে ফেলে।গাছ কাটতে বাধা দেয়ায় ভুক্তভোগী বেলায়েত হোসেন’র গায়ে হাত তুলতে এগিয়ে আসে মুসা মিয়ার কথিত বদমেজাজী ছেলে জাবেদ ও তার বহিরাগত সহযোগীরা।এসময় ধারালো অস্ত্র প্রদর্শন করে হত্যা ও নির্যাতনের হুমকি প্রদর্শন করলে বেলায়েত হোসেন দ্রুত সম্মান ও জীবন রক্ষার্থে সরে যান।এসময় জাবেদ ও তার সহযোগীরা উচ্ছ হাসি দিয়ে ভিকটিমের দৈর্ঘ্য ২২ হাত এবং প্রস্থে ১২ হাত জায়গায় গাছ ও টিনের বেড়া দিয়ে বে-দখল করে।এসময় অতর্কিত ভাবে কোন রূপ কথা ছাড়াই বেলায়েত ও তার বাড়িতে হামলা চালাতে আসলে উপস্থিত এলাকার লোকজন বাধা দেয়।মানবিক দিক বিবেচনা উভয় পক্ষকে একত্রিত করে বিষয়টি মিমাাংস করার চেষ্টা করা হলে বিবাদীর অনুপস্থিতিতে সমাধান না হওয়ায় বেলায়েত নিরুপায় হয়ে ফেনী জর্জ কোটে ফৌজদারী (১৪৫) ধারা আইনে মামলা করে যার মামলা নং-১৬৭/২০২১।মামলার আইনজীবি ফজলুল হক ছোটন বলেন আমার ভিকটিমরা আইনের আশ্রয় চায়,তারা সম্পূর্ন অসহায় এবং নিরূপায় হয়ে আদালতের সরনাপর্ন হয়েছেন,বেলায়েত হোসেনের (বাদীপক্ষ)জোর পূর্বক বেদখল কৃত ২২ হাত দৈর্ঘ্য ও ১২ হাত প্রস্থের টিনের ছাউনি যুক্ত ঘর বিজ্ঞ আদালত উচ্ছেদের বিষয় আদেশ প্রদান করবে বলে এই বিষয়ে আমি আশাবাদী। Attachments area

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *