সোনারগাঁয়ে গাছে গাছে দুলছে লিচুর সোনালী মুকুল,গাছ পরিচর্যায় ব্যস্ত চাষীরা।

সোনারগাঁয়ের লিচু রসে ভরা, সুস্বাদু। দেশের অন্যান্য এলাকার চেয়ে আগে বাজারে আসে বলে এর কদর রয়েছে দেশ-বিদেশে। গত কয়েক মৌসুম ধরে দেশের অনেক এলাকায় কমবেশি লিচু চাষ হলেও, মানুষের কাছে সোনারগাঁয়ের লিচুর গ্রহণযোগ্যতাই আলাদা। আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে ও প্রাকৃতিক কোনো দুর্যোগ না হলে, এবারও সোনারগাঁয়ে রেকর্ড পরিমাণ লিচুর ফলন হবে বলে আশা করছেন চাষি ও বাগানিরা।


মোঃ মিঠু আহমেদ সোনারগাঁ প্রতিনিধিঃ সোনারগাঁয়ের লিচু রসে ভরা, সুস্বাদু। দেশের অন্যান্য এলাকার চেয়ে আগে বাজারে আসে বলে এর কদর রয়েছে দেশ-বিদেশে। গত কয়েক মৌসুম ধরে দেশের অনেক এলাকায় কমবেশি লিচু চাষ হলেও, মানুষের কাছে সোনারগাঁয়ের লিচুর গ্রহণযোগ্যতাই আলাদা। আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে ও প্রাকৃতিক কোনো দুর্যোগ না হলে, এবারও সোনারগাঁয়ে রেকর্ড পরিমাণ লিচুর ফলন হবে বলে আশা করছেন চাষি ও বাগানিরা।
সরেজমিনে সোনারগাঁ  উপজেলার বিভিন্ন গ্রাম ঘুরে দেখা গেছে, গাছে গাছে মুকুল আসতে শুরু হয়েছে। আর বাগান পরিচর্চায় ব্যস্ত সময় পার করছেন লিচু চাষিরা। লিচু বাগানে পাখিদের আনা-গোনা, নয়নাভিরাম দৃশ্যে মুগ্ধ পথচারী ও এলাকাবাসী।লিচু চাষিরা জানান, চলতি মৌসুমে অধিকাংশ গাছেই মুকুল আসবে। যদি আবহাওয়া অনুকূলে থাকে, তাহলে এবার লিচুর বাম্পার ফলন হবে। এবং ইতিমধ্যে  মধ্যে ফুলে ফুলে ছড়িয়ে পরেছে সোনারগাঁ উপজেলার বিভিন্ন এলাকা। মুকুল এসে যেন ঝরে না পড়ে, তাই এজন্য এখন থেকেই বাগানের দিকে নজর রাখছেন বাগান চাষিরা।  

মৌসুমী ফল ব্যবসায়ীরা লাভের আশায় আগেই কিনে রাখছেন লিচু গাছগুলো। শিলা বৃষ্টি বা কালবৈশাখীর মতো প্রাকৃতিক দুর্যোগের খাঁড়ায় না পড়লে সোনারগাঁয়ে এবার লিচুর ব্যাপক উৎপাদন হবে। 
এ বছর সোনারগাঁয়ে প্রায় ১০০ হেক্টর জমিতে লিচু চাষ হয়েছে।এ অঞ্চলের লিচুর মধ্যে কদমি ( বোম্বাই ), চায়না থ্রি, বেদেনা, এলাচি ও পাতি লিচু উল্লেখযোগ্য।
বাগান কয়েক ধাপে বিক্রি হয়। গাছে মুকুল আসার আগেই এবং লিচু গুটি হওয়ার পরে বাগান বিক্রি হয়। লিচু পাকার আগেই বেশ কয়েকবার পরিবর্তন হয় বাগানের মালিকানা। তবে অনেক বাগান মালিকরা লাভের আশায় নিজেই শ্রম দেন। অনেক সময় খরার কারণে লিচুর আকার ছোট হয়ে যায়। আবার অনেক সময়  কালবৈশাখী ঝড়ে সব লণ্ডভণ্ড হয় লিচু বাগান। তখন ব্যাপক ক্ষতির সম্মুখীন হয় লিচু চাষি ও ব্যবসায়ীরা।   লিচু চাষিদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, চলতি মৌসুমে গাছে গাছে আসতে শুরু হয়েছে মুকুল।  আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে লিচুর বাম্পার ফলন হবে। আগামী কয়েক দিনের মধ্যে লিচু গাছে ফুলে ফুলে ছেয়ে যাবে। তাই গুটি যেন ঝরে না যায়, সেদিকে নজর রাখছেন বাগান চাষিরা। গুটি ঝরা রোধকল্পে অনেকে বাগানে সেচ দিচ্ছেন।   সোনারগাঁ উপজেলা কৃষি অফিসার মনিরা আক্তার বলেন, লিচু চাষিদের সঙ্গে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ বজায় রেখে তাদের সঠিক পরামর্শ দেয়া হচ্ছে।‘চলতি মৌসুমে প্রায় ১০০ হেক্টর জমিতে লিচু চাষের লক্ষমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। প্রাকৃতিক দুর্যোগ না হলে এবারে রেকর্ড পরিমাণে লিচু উৎপাদনের সম্ভাবনা রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *