সোনাগাজীতে ইসলামী আন্দোলন’র করোনা দাফন টিম লিডার মূফতি আহসান উল্যাহ পেলেন মানব সেবায় পুরস্কার

আলমগীর হোসেন রিপনঃ

করোনাকালীন সময়। এসময় যেন মানুষের অন্তরের ছবি প্রকাশের সময়। যারা মুখে আপন আপন করতো তারা কেমন আপন প্রকাশ করেছে করোনা। যে করোনা ছেলেকে রেখে পিতা পালিয়েছে। স্বামীকে রাখা হয়েছে আলাদা বন্ধি ঘরে। কিন্তু মানবতা সেখানে অনন্যরূপ দেখিয়েছে।
ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ’র কেন্দ্রীয় নির্দেশনা অনুযায়ী সোনাগাজী উপজেলার ৮সদস্য বিশিষ্ট করোনা টিম গঠন করে। যাদের প্রশিক্ষণ দেয়া হয়েছে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার তত্বাবধানে সরকারী প্রশিক্ষকরা। 
উপজেলা কনফারেন্স রুম থেকে প্রশিক্ষণ পেয়েই তারা দিনরাত প্রস্তুত থেকে মহামারী করোনাকালীন সময়ে ১০জন ব্যক্তির মরদেহ দাফন করে। 
এরই মধ্যে করোনায় আক্রান্ত হয়েছে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ করোনা দাফন কমিটির টিম লিডার মূফতি আহসান উল্যাহ। জুলাই মাসের ১-২১তারিখ পর্যন্ত হোম কোয়ারান্টাইনে ছিলেন নিজ বাড়ীতে। এতে সহযোগীতা করেছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা অজিত দেব। তিনি প্রতিদিন কর্ম ব্যস্ততার মাঝেও খোঁজ খবর নিয়েছেন মূফতি আহসান উল্যাহ।
অনলাইন ভিত্তিক সাহিত্য সংগঠন স্বদেশ প্রতিভা বিকাশ সাহিত্য সংগঠনের উদ্যোগে আয়োজিত সাহিত্য আড্ডা স্বরচিত কবিতা পাঠ ও বিভিন্ন কর্মকান্ডের জন্য পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান ৬ই ফেব্রুয়ারী শনিবার বিকালে সোনাগাজী সিটি হাইস্কুলে অনুষ্ঠিত হয়।
সংগঠনের সভাপতি মাওলানা দেলোয়ার হোসেন মেহেদীর সভাপতিত্বে ও যুগ্ম সম্পাদক ইকবাল হোসাইনের সঞ্চালনায় প্রধান অতিথি ছিলেন, ফেনী জেলা আওয়ামিলীগের যুগ্ম সম্পাদক ও সোনাগাজী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জহির উদ্দিন মাহমুদ লিপটন। 
বিশেষ অতিথি ছিলেন, চরচান্দিয়া ইউপি চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন মিলন, সোনাগাজী উপজেলা পেশাজীবী ফোরামের সভাপতি প্রফেসর কাউছার আহমেদ।
শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন, স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন সহায় নির্বাহী পরিচালক মঞ্জিলা মিমি, জুলহাস তালুকদার, সমৃদ্ধ সোনাগাজী উন্নয়ন ফোরামের সভাপতি ইব্রাহীম সাকিল, সংগঠন সাধারণ সম্পাদক মাওলানা হারুন।
এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন, সোনাগাজী ডেভেলপমেন্ট ফোরাম এসডিএফের সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক আলমগীর হোসেন রিপন, সাংবাদিক শহিদুল্যাহ, রিফাত, আব্দুল্যাহ রিয়েল, আবছার সোহাগ, কাজী নজরুল ইসলাম,  আব্দুর রহিম রুবেল, কবি সাহিত্যক মিলন সহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার ব্যক্তিবর্গ। 
ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের সোনাগাজী উপজেলা করোনা দাফন কমিটির টিম লিডার মূফতি আহসান উল্যাহ তার বক্তব্যে বলেন, আমরা করোনার মত মহামারীর সময়ে আমাদের আমীর পীর সাহেব চরমোনাই এর নির্দেশনায় জীবনের ঝুঁকি নিয়ে মাঠে ছিলাম। আমাদের রাজনীতি হলো ইবাদত। তাই দেশের প্রয়োজনে আরো কঠিন মূহুর্তেও আমরা প্রস্তুত থাকবো।
জানতে চাইলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা অজিত দেব জানান, করোনার সময়ে ইসলামী আন্দোলনের টিম যথেষ্ট ভুমিকা রেখেছে। এখনো কোনো প্রয়োজন হলে আমরা উনাদের ডাকি। এবং তারা আমাদের ডাকে সাড়া দিয়ে আন্তরিকতার সাথে চলে আসেন। টিম লিডার মূফতি আহসানও করোনায় আক্রান্ত হয়েছিল। আমাদের পক্ষ থেকে যোগাযোগ করেছি। এখন করোনার দ্বিতীয় ঢেউ চলছে। আমরা উনাদের সম্মানিত করার জন্য উদ্যোগ নেবো।
এছাড়াও করোনা কালীন সময়ে অবদান রাখায় ইসলামিক ফাউন্ডেশনের টিমের সদস্য এসএন আফছার সোহাগ এবং সাহিত্য চর্চায় উত্তীর্ণ হওয়ায় এমদাদুল হক সুজনের হাতে সম্মাননা স্মারক তুলে দেন অতিথিবৃন্দ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *